How to Fill NID Card Correction Form 2

NID কার্ডের সাক্ষর এবং ছবি পরিবর্তন 2024

জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি অস্পষ্ট বা ছবি আপডেট নয় ? এনআইডি কার্ডের ছবি পরিবর্তন করতে হবে ? তবে জানেন না কিভাবে NID কার্ডের সাক্ষর এবং ছবি পরিবর্তন করবেন? আজকের পোস্টে আমরা জানবো কেন জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি পরিবর্তন করার প্রয়োজন হতে পারে এবং কিভাবে জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি পরিবর্তন করবেন। 

অনেক্ষেত্রে অনেকেরই দ্রুত জাতীয় পরিচয় পত্রের প্রয়োজন হয়। তাড়াতাড়ি এনআইডি কার্ড বানাতে যেয়ে ভালো ছবি দেওয়া যাই না। ছবি এতটাই অস্পষ্ট হয় যে ব্যক্তির পরিচয় যাচাই করা সম্ভব হয় না। আবার অনেক্ষেত্রে ছবি পুরাতন হয়ে যায় এবং ছবি পরিবর্তন এর প্রয়োজনের হয়। 

জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি অথবা সাক্ষর পরিবর্তন করতে হলে একটি ফর্ম পূরণ করতে হয়। ফরমটি পূরণ করে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের উপজেলা অফিসে জমা দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ডের ছবি এবং সাক্ষর পরিবর্তন করা যাই। 

আজকের পোস্টে আমরা জানবো কেন জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ডের ছবি পরিবর্তন করার প্রয়োজন হয় এবং কিভাবে ছবি অথবা সাক্ষর পরিবর্তন করবেন। অর্থাৎ কিভাবে NID সংশোধন ফর্ম ২ পূরণ করবেন। 

NID কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন

জাতীয় পরিচয় পথের ছবি বা সাক্ষর পরিবর্তন করার জন্য একটি ফর্ম পূরণ করে সংশোধন ফি জমা দিয়ে আবেদন জমা দিতে হয়।

বোঝার সুবিধার্তে নিম্নে NID কার্ডের সাক্ষর এবং ছবি পরিবর্তন করার ধাপ গুলো দেওয়া হলো – 

  • জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফরম-২ ডাউনলোড
  • সংশোধন ফরম পূরণ করুন
  • সংশোধন ফি জমা দিন
  • আবেদন সাবমিট করুন

জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ডের ছবি পরিবর্তন 

জাতীয় পরিচ পত্র ( NID ) কার্ড এর ছবি পরিবর্তন করার জন্য আপনাকে জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফর্ম – ২ পূরণ করতে হবে। ফরমটি পূরণ করে উপজেলা নির্বাচন অফিসে জমা দিতে হবে। আবেদনটি আবেদনকারীকে স্বশরীরে নির্বাচন অফিসে যেয়ে জমা দিতে হবে। একইসাথে জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফি ২৩০ টাকা জমা দিতে হবে এবং ট্রানজেকশন নাম্বার আবেদনে উল্লেখ করে দিতে হবে। 

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন এর কিছু ক্যাটাগরি আছে। এনআইডি কার্ডের ছবি এবং সাক্ষর পরিবর্তন খ ক্যাটাগরির অন্তর্ভুক্ত। খ ক্যাটাগরি জেলা পর্যায়ে অনুমোদন করা হয়। 

NID Card Photo
NID Card Photo ( Source – baskadia.com )

এনআইডি কার্ড ছবি বা সাক্ষর পরিবর্তন আবেদন জমা দেওয়া হলে প্রাথমিকভাবে যাচাই করা হয়। আপনার দেওয়া ছবি বা সাক্ষর পরিবর্তন এর কারণ যদি যুক্তিসম্মত এবং সঠিক হয় তবে নতুন ছবি তোলার একটি তারিখ দেওয়া হবে।  নির্বাচন অফিসের কাজের পরিমানের উপর নির্ভর করে ছবি তুলতে সময় একটু বেশিও লাগতে পারে। 

আরও পড়ুন  Smart NID Status Check 2024 - অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র যাচাই

আবেদনটি অনুমোদন হলে এবং সফলভাবে ছবি বা সাক্ষর পরিবর্তন করা হলে সংশোধিত জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করার জন্য মোবাইলে নাম্বারে SMS পাবেন। 

NID কার্ডের স্বাক্ষর পরিবর্তন করার নিয়ম

জাতীয় পরিচয় পত্রের সাক্ষর পরিবর্তন করার জন্যেও ছবি পরিবর্তন এর মোট সাক্ষর পরিবর্তন ফর্ম ডাউনলোড করতে হবে। ফরমটি ডাউনলোড করে প্রিন্ট করে নিতে হবে। প্রিন্ট করা ফর্মটি পূরণ করে প্রয়োজনীয় সংশোধন ফি পরিষদ করতে হবে।ফরমটি আবেদনকারীকে স্বশরীরে যেয়ে নির্বাচন কমিশনের অফিসে জমা দিয়ে আস্তে হবে। 

জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ডের ছবি এবং সাক্ষর পরিবরতন পদ্ধতি একই। NID সংশোধন ফর্ম ২ পূরণ করে উভয় তথ্য সংশোধন করা যাই। বোঝার সুবিধার্তে NID ফর্ম – ২ পূরণ করার সপূর্ণ পদ্ধতি নিম্নে বিস্তারিত বর্ণনা করা হলো – 

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফরম ২ ডাউনলোড

জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ড সংশোধন ফর – ২ ডাউনলোড করার জন্য প্রথমেই ভিজিট করুন বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ( services nidw gov bd )। এখান থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র তথ্য সংশোধন এর জন্য সংশোধন ফর্ম – ২ ডাউনলোড করতে হবে। 

Services.nidw.gov.bd
Services.nidw.gov.bd

জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি এবং সাক্ষর পরিবর্তন ফর্ম – ২ ডাউনলোড করুন :- জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফর্ম – ২ পিডিএফ ডাউনলোড। ফরমটি ডাউনলোড করে প্রিন্ট করিয়ে নিতে হবে। প্রিন্ট হলে নিয়ম মতো পূরণ করে জমা দিতে হবে।   

NID Card সংশোধন ফর্ম - ২
NID Card সংশোধন ফর্ম – ২

আইডি কার্ড সংশোধন ফর্ম – ২ পূরণ করার নিয়ম 

জাতীয় পরিচয় পত্রের সাক্ষর বা ছবি পরিবর্তন করার জন্য প্রথমেই আইডি কার্ড সংশোধন ফর্ম ২ ডাউনলোড করে প্রিটন করিয়ে নিতে হবে। ফর্ম প্রিন্ট করা হলে ফর্মের প্রথমে আবেদনকারীর নাম এবং জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার লিখতে হবে। 

সংশোধনের বিষয় অনুযায়ি ফর্মের অন্যান্য অপশনে সাক্ষর এবং ছবি লিখুন। সংশোধন তথ্য এর ঘরেও সাক্ষর এবং ছবি লিখুন। 

আবেদনকারীর তথ্য এবং সংশোধনের বিষয় নির্ধারণ করা সম্পূর্ণ হলে ৬ নং ক্রমিকে সংযুক্ত দলিলাদির ঘরে দলিলাদি হিসেবে জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি লিখুন। ফাঁকা ঘর গুলো কেটে দিন। ফর্মটির শেষে আবেদনকারীর মোবাইলে নাম্বার প্রদান করতে হবে। পরবর্তীতে এই নাম্বারে আবেদন সম্পর্কে প্রয়োজনে তথ্য পাঠানো হবে।  

আরও পড়ুন  নতুন জন্ম নিবন্ধনের জন্য আবেদন করার নিয়ম 2024

বোঝার সুবিধার্তে নিম্নে জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন ফর্ম ২ এর একটি নমুনা দেখানো হলো। যেভাবে দেখানো হয়েছে সেভাবে ফরমটি পূরণ করে জমা দিলে আইডি কার্ডের সাক্ষর এবং ছবি পরিবর্তন হয়ে যাবে।   

সংশোধন ফি জমা দিন 

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধ  এর জন্য নির্দিষ্ট সংশোধন ফি প্রদান করতে হয়। এই ফি প্রদান করা বাধ্যতামূলক। আইডি কার্ডের সাক্ষর এবং ছবি পরিবর্তন করার ফি ২৩০ টাকা। 

আপনি চাইলে বিভিন্নভাবে সংশোধন ফি প্রদান করতে পারেন। মোবাইল ব্যাংকিং, বিকাশ, রকেট বা নগদ এর মাধ্যমে আইডি কার্ড সংশোধন ফি প্রদান করা যাই।  বিকাশ বাংলাদেশের সবথেকে জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং সেবা প্রদানকারী। এজন্য নিম্নে কিভাবে বিকাশ মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে আইডি কার্ড সংশোধন ফি পরিষদ করবেন তা দেখানো হলো। 

বিকাশ থেকে আইডি কার্ড সংশোধন ফি প্রদান করার জন্য প্রথমেই বিকাশ চালু করে ড্যাসবোর্ড থেকে পে বিল অপশনে জিতে হবে। এখন থেকে NID Services অপসন বাচাই  করুন। আবেদনের ধরণ বাচাই এবগং NID  নাম্বার বাচাই করুন। এবং সর্বশেষে ২৩০ টাকা আইডি কার্ড সংশোধন ফি জমা দিন।

Bkash NID Fee
Bkash NID Fee

 

সংশোধন ফি যদি কোনো মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস যেমন বিকাশ এর মাধ্যমে পরিষদ করে থাকেন তবে ফি জমা দেওয়া  হলে ফি ট্রানজেকশন নাম্বারটিও আবেদন ফর্মে যুক্ত করতে হবে। 

সংশোধন আবেদন জমা দিন

জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি এবং সাক্ষর পরিবর্তন করার জন্য সংশোধন ফর্ম ২ সঠিকভাবে পূরণ করা সম্পূর্ণ হলে আবেদনকারীকে স্বশরীরে নির্বাচন কমিশনের অফিসে যেয়ে জমা দিতে হবে। আবেদনকারীর পরিবর্তে যদি অন্য কেও যাই তবে আবেদনটি গ্রহণযোগ্য হবে না। 

আবেদনটির সাথে জাতীয় পরিচয় পত্রের কপিও জমা দিয়া লাগবে। সবকিছু সঠিকভাবে করা হলে এবং আবেদনের কারণের অর্থাৎ ছবি বা সাক্ষর পরিবর্তনের কারণ যুক্তিযুক্ত হলে আবেদন নির্বাচন কমিশন গ্রহণ করবে। আবেদন গ্রহণ করা হলে নতুন ছবি বা সাক্ষর প্রদান করার জন্য নির্দিষ্ট তারিখ দেওয়া হবে। 

নতুন ছবি ও স্বাক্ষর যুক্ত আইডি কার্ড ডাউনলোড

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন জমা দিয়ে নতুন ছবি এবং সাক্ষর প্রদান করার পর আবেদন অনুমোদন হতে সাধাণরত ১৫ – ৩০ দিন সময় লাগে। নির্বাচন কমিশনের কাজের চাপের উপর নির্ভর করে সময় বেশি বা কমও লাগতে পারে।  

জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি এবং সাক্ষর পরিবর্তন সংশোধন ক্যাটাগরি খ এর অন্তর্ভুক্ত। আবেদন অনুমোদন হলে এবং নতুন আইডি কার্ড প্রস্তুত হলে নির্বাচন কমিশন থেকে জানিয়ে দেওয়া হবে। সংশোধন সফল হলে নতুন সাক্ষর এবং ছবি যুক্ত জাতীয় পরিচয় পত্র নির্বাচন কমিশনের অফিস থেকে অথবা অনলাইন থেকে সংগ্রহ করতে হবে। 

আরও পড়ুন  Services Nidw Gov BD - NID বিষয়ক সকল সেবা যেভাবে পাবেন

 এধরণের আবেদন অনুমোদনের জন্য জেলা পর্যায়ে চলে যায়। তাই আবেদন করার সময় খুব সাবধানে করতে হবে। আবেদনে ভুল হলে তা সংশোধন করতে পরে অংকে ভোগান্তি হতে পারে। 

নতুন জাতীয় পরিচয় পত্রটি ডাউনলোড করার জন্য প্রথমেই services nidw gov bd এর ওয়েবসাইটে যেতে হবে। সাইটে যেয়ে আপনার আইডি কার্ড নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে একাউন্ট নিবন্ধন করতে হবে। তারপর ড্যাসবোর্ড থেকে ডাউনলোড মেনুতে যেতে হবে। এখন থেকে নতুন সংশোধিত আইডি কার্ডটি ডাউনলোড করতে পারবেন। 

অনলাইন থেকে কিভাবে নতুন বা সংশোধিত জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করবে সে বিষয়ে বিস্তারিত জানতে আরো পড়তে পারেন :-  

শেষ কথা 

আশা করি আজকের পোস্টটি আপনার কাছে ভালো লেগেছে। আজকের পোস্টে আমরা আলোচনা করেছি, ভোটার আইডি অর্থাৎ জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ডের ছবি এবং সাক্ষর কিভাবে করবেন এবং সংশোধনে কি কি প্রয়োজন। আমরা  ভোটার আইডি কার্ডের ছবি এবং সাক্ষর সংশোধন করতে কি কি লাগে এবং কিভাবে করবেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি যা আপনাকে সহজেই ভোটার আইডি কার্ডের ছবি ও সাক্ষর সংশোধন করতে সাহায্য করবে। 

আপনি যদি ভোটার আইডি কার্ড সম্পর্কে আরো নতুন পোস্ট করতে চান তাহলে ওয়েবসাইটটি বুক মার্ক করে রাখতে পারেন। এবং আপনি  আপনার মূল্যবান মতামত বা কোন প্রশ্ন থাকলে তা কমেন্টে শেয়ার করতে ভুলবেন না।  

FAQ’s

জাতীয় পরিচয় পত্রের সাক্ষর এবং ছবি কিভাবে পরিবর্তন করে ?

জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি অথবা সাক্ষর পরিবর্তন করতে হলে একটি ফর্ম পূরণ করতে হয়। ফরমটি পূরণ করে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের উপজেলা অফিসে জমা দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ডের ছবি এবং সাক্ষর পরিবর্তন করা যাই। 

জাতীয় পরিচয় পত্রের সাক্ষর এবং ছবি পরিবর্তন ফি কত টাকা ?

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধ  এর জন্য নির্দিষ্ট সংশোধন ফি প্রদান করতে হয়। এই ফি প্রদান করা বাধ্যতামূলক। আইডি কার্ডের সাক্ষর এবং ছবি পরিবর্তন করার ফি ২৩০ টাকা। 

জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি এবং সাক্ষর কি অনলাইনে সংশোধন করা যাই ?

জি না। জাতীয় পরিচয় পত্রের সাক্ষর বা ছবি পরিবর্তন করার জন্য আবেদনকারীর স্বশরীরে নির্বাচন কমিশনের অফিসে যেতে হয়। 

সংশোধন আবেদন গ্রহণ করার পর কার্ড সংশোধন হতে কত দিন সময় লাগে ?

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন জমা দিয়ে নতুন ছবি এবং সাক্ষর প্রদান করার পর আবেদন অনুমোদন হতে সাধাণরত ১৫ – ৩০ দিন সময় লাগে। নির্বাচন কমিশনের কাজের চাপের উপর নির্ভর করে সময় বেশি বা কমও লাগতে পারে।  

সংশোধন করার পর কি নতুন আইডি কার্ড পাবো ?

জি না। কার্ড সংশোধন করার পর নতুন করে আইডি কার্ড পাবেন না। কার্ড প্রয়োজন হলে অনলাইন কপি ডাউনলোড করে প্রিন্ট করিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। 

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।