NID সংশোধন আবেদন বাতিল

NID সংশোধন আবেদন বাতিল করার নিয়ম 2024

ভুল করে জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) সংশোধন আবেদন করেছেন? এখন এনআইডি সংশোধন আবেদন বাতিল করতে হবে ? তবে জানা নেই কিভাবে বাতিল করবেন ? আজকের পোস্টে আমরা কিভাবে জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ড সংশোধন আবেদন বাতিল করবেন সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। 

বিভিন্ন কারণে জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন বাতিল করার প্রয়োজন হতে পারে। অনেকসময় দেখা যায় অনেকে এনআইডি কার্ড এর তথ্য ভুল ভেবে সংশোধন আবেদন করে। তবে পরে দেখা যায় তথ্যটি আসলে ভুল নয়।  এক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন বাতিল করার প্রয়োজন হয়। 

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন বাতিল করার সঠিক নিয়ম না জেনে আবেদন করার সময় আবেদনে ভুল হতে পারে। আবেদনে ভুল হলে এর জন্য পরবর্তীতে অনেক সমস্যার মুখে পড়তে হয়। এজন্য আমাদের উচিৎ সংশোধন আবেদন বাতিল করার সঠিক নিয়ম জেনে তবেই আবেদন করা। 

আজকের পোস্টে আমরা জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন বাতিল করার নিয়ম এবং সংশোধন আবেদন বাতিল করার দরখাস্তের নমুনা দেখবো।  

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন বাতিল করার নিয়ম

জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ড সংশোধন আবেদন বাতিল করার জন্য আপনাকে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের উপজেলা নির্বাচন অফিসার বরাবর একটি আবেদন লিখতে হবে। আবেদনটিতে আবেদনকারীর নাম, জন্ম তারিখ, জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার এবং আবেদন বাতিল করার উপযুক্ত কারণ দিতে হবে। জমা দেওয়া আবেদনটি নির্বাচন অফিস গ্রহণ করলে উপজেলা নির্বাচন অফিসার এনআইডি সংশোধন আবেদনটি বাতিল করে দিবেন। 

আবেদনটি অবশ্যই A4 সাইজের কাগজে লিখতে হবে। আবেদন হাতে না লিখে কম্পিউটারে লিখলে ভালো হয়। তবে হাতে লিখা হলেও চলবে। হাতে লেখা হলে হাতের লেখা সুন্দর হতে হবে। তাছাড়া আবেদনটি আবেদনকারীকে স্বশরীরে নির্বাচন কপিসনের অফিসে যেয়ে জমা দিতে হবে। আবেদনকারী বাদে অন্য কেও আবেদন নিয়ে গেলে তা গ্রহনজোগ্য হবে না।  

আরও পড়ুন  ভোটার স্লিপ হারিয়ে গেলে করণীয় 2024 - যেভাবে কার্ড বের করবেন

বোঝার সুবিধার্তে নিম্নে আবেদনটির একটি নমুনা দেওয়া হলো :- 

NID কার্ড সংশোধন আবেদন বাতিল করার দরখাস্তের নমুনা 

NID সংশোধন আবেদন বাতিল ফরম
NID সংশোধন আবেদন বাতিল ফরম

NID সংশোধন আবেদন বাতিল করার আবেদন

তারিখ : ০৮/০৫/২০২৩

বরাবর,
উপজেলা নির্বাচন অফিসার,
মিরপুর, ঢাকা – ১২১৬

বিষয়: NID সংশোধন আবেদন বাতিল করার আবেদন।

জনাব,
সবিনয় নিবেদন এই যে আমি ( আবেদনকারীর নাম ), ( আবেদনকারীর পিতার নাম ), ( আবেদনকারীর গ্রাম ), ( ডাকঘর ), ( আবেদনকারীর জেলা ), বিগত ( জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন এর তারিখ ) তারিখে অনলাইনে আমার জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ড সংশোধনের জন্য আবেদন করেছিলাম। আমার NID নম্বর ১২৩৪৫৬৭৮৯০, জন্মতারিখ: ০১/০১/২০০০ ইং। আবেদনটি অনলাইনে এখনো অনুমোদিত হয়নি।

যে কারণে আমি আমার জাতীয় পরিচয় পত্র এর তথ্য সংসধোনের আবেদন করেছিলাম তা সমাধান হয়ে গিয়েছে। এজন্য আমি সংশোধন আবেদনটি বাতিল করতে চাই। 

অতএব, মহোদয়ের নিক বিনীত অনুরোধ এই যে আমার জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ড সংশোধন আবেদনটি বাতিল করে আমাকে বাধিত করবেন। 

বিনীত নিবেদক :- 

( আবেদনকারীর নাম )

( আবেদনকারীর NID নাম্বার ) 

( যোগাযোগের জন্য মোবাইল নাম্বার )

উপরুক্ত জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন বাতিল করার দরখাস্তের নমুনার মতো দরখাস্ত লিখে নির্বাচন কমিশন অফিসারের কাছে জমা দিতে হবে। দরখাস্তটি গ্রহণ করা হলে নির্বাচন কমিশন অফিসার আবেদনটি বাতিল করার জন্য প্রয়োজনিয় পদক্ষেপ নিবেন।  

উপরুক্ত নমুনাটি কপি করে আপনার প্রয়োজনমতো সঠিক তথ্য বসিয়ে সংশোধন করে দরখাস্ত নির্বাচন কমিশন অফিসারের কাছে জমা দিতে পারেন।  

শেষকথা

আশা করি আজকের পোস্টটি আপনার কাছে ভালো লেগেছে। আজকের পোস্টে আমরা আলোচনা করেছি, কেন এবং কিভাবে জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ড সংশোধন আবেদন বাতিল করবেন। আমারা এনআইডি কার্ড সংশোধন আবেদন বাতিল করার সঠিক এবং সবথেকে সহজ পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা  করেছি যা আপনাকে সহজেই জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন বাতিল করতে সাহায্য করবে। 

আরও পড়ুন  Smart NID Card Server Copy Download - এনআইডি সার্ভার কপি ডাউনলোড [2024]

আপনি যদি জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ড সম্পর্কে আরো নতুন পোস্ট পড়তে চান তাহলে ওয়েবসাইটটি বুক মার্ক করে রাখতে পারেন। এবং আপনি  আপনার মূল্যবান মতামত বা কোন প্রশ্ন থাকলে তা কমেন্টে শেয়ার করতে ভুলবেন না।  

FAQ’s

এনআইডি সংশোধন আবেদন বাতিল করতে কি টাকা লাগব ?

জি না। জাতীয় পরিচয় পত্র ( NID ) কার্ড সংশোধন আবেদন বাতিল করার জন্য কোনো টাকা লাগে না। 

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন আবেদন করার সময় কত দিন ?

সংশোধন আবেদনটি অনুমোদন হওয়ার সময় থেকে ৪৫ দিনের মধ্যে এনআইডি সংশোধন আবেদনটি বাতিল করার জন্য আবেদন করা যাই। 

এনআইডি সংশোধন আবেদনটি বাতিল হতে কত দিন সময় লাগে ?

সাধারণভাবে সংশোধন আবেদনটি বাতিল করার জন্য দরখাস্ত জমা দেওয়ার ৭ – ১৫ দিনের মধ্যেই সংশোধন আবেদন বাতিল হয়ে যাই। 

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।